হোম পেজ

টিআইবি বিএনপি-জামায়াতের পক্ষে প্রতিবেদন দিয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

  হাছান মাহমুদ বাংলাদেশের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগ এনে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) যে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে, তা প্রত্যাখ্যান করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। আজ (বুধবার) চট্টগ্রামে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, “নির্বাচন নিয়ে যে বক্তব্য-গবেষণার কথা বলে টিআইবি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে, তাতে আর বিএনপির বক্তব্যের মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। প্রকৃতপক্ষে বিএনপি-জামায়াতের পক্ষে টিআইবি একটি প্রতিবেদন দিয়েছে মাত্র। অন্য কোনো কিছু নয়।” গত মঙ্গলবার টিআইবির প্রতিবেদনে বলা হয়, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৪৭টি আসনের প্রতিটিতে এক বা একাধিক ভোটকেন্দ্রে নির্বাচনি অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ৪১ আসনে পড়েছে জাল ভোট। আর ৩৩ আসনে আগের রাতে ব্যালটে সিল মারা হয়েছে। ২৯৯ আসনের মধ্যে দ্বৈবচয়নের ভিত্তিতে ৫০টি আসনে গবেষণা করে, এমন তথ্য দেয় টিআইবি। সে অনুযায়ী ৯৪ শতাংশ আসনে নির্বাচনি অনিয়ম হয়েছে। জাল ভোট পড়েছে ৮২ শতাংশ আসনে। নির্বাচনের আগের [বিস্তারিত...]

সিলেট হবে প্রথম ডিজিটাল সিটি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  ড. এ কে আব্দুল মোমেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ‘দেশের প্রথম ডিজিটাল সিটি হবে সিলেট। যেখানে যেকোনও জায়গায় সবাই ওয়াইফাই বিনা পয়সায় পাবে। এগুলো ম্যানেজ করতে আমাদের অনেক দক্ষ লোক দরকার। যা বাস্তবায়নে এই আমাদের নবীন শিক্ষার্থীসমাজ এগিয়ে আসবে।’ আজ (বুধবার) শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে সম্মান প্রথম বর্ষে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের আর্থিক অবস্থার এখন অনেক উন্নতি হয়েছে। এখন দেশে আর কোনও মঙ্গা নেই। আমরা এখন উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছি। আমাদের প্রতিবেশী দেশগুলোর তুলনায় আমরা সামাজিক অবস্থানের দিক থেকে অনেক দূর এগিয়ে এসেছি। এর কারণ আমাদের গতিশীল মানুষ এবং আমাদের খেটে খাওয়া মানুষ। আমরা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার বাস্তবায়ন চাই, যেখানে অন্ন বস্ত্র বাসস্থান নিশ্চিত থাকবে। গত দশ বছর যেভাবে দেশের অগ্রগতি [বিস্তারিত...]

অঙ্গীকার - ‘যতক্ষণ দেহে আছে প্রাণ প্রাণপণে পৃথিবীর সরাব জঞ্জাল’

শেখ উল্লাস ॥ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রাক্কালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৮০-পৃষ্ঠার নির্বাচনী ইশতেহারে আওয়ামী লীগ সভাপতি দেশরত্ন শেখ হাসিনার প্রত্যয় ও প্রতিশ্রুতি হিসেবে উৎকীর্ণ রয়েছে কবি সুকান্ত ভট্টাচার্য-এর এই ক’টি লাইন- ‘যতক্ষণ দেহে আছে প্রাণ প্রাণপণে পৃথিবীর সরাব জঞ্জাল, এ বিশ্বকে এ শিশুর বাসযোগ্য করে যাব আমি- নবজাতকের কাছে এ আমার দৃঢ় অঙ্গীকার।’ ১৯৭০-এর নির্বাচনের মতো একাদশ সংসদ নির্বাচনে অবিস্মরণীয় জয়লাভের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ নবজন্ম লাভ করেছে। ১৯৭০ ও ২০১৮ সালে আওয়ামী লীগের এই বিজয় বাঙালি জাতি ও বাংলাদেশের ইতিহাসে উন্মোচন করেছে এক নতুন দিগন্ত। ’৭০ সালের ডিসেম্বরে বাঙালি জনগোষ্ঠীর নিরঙ্কুশ ম্যান্ডেট পেয়ে বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক জনসভায় ঘোষণা করেছিলেন- এবারের সংগ্রাম, আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতা সংগ্রাম’। এরই ধারাবাহিকতায় দেশ স্বাধীন হয়েছিল, সেই দেশ আজ অনেক দূর এগিয়ে গেছে সত্য। কিন্তু আরও অনেক পথ [বিস্তারিত...]

সময়ের সাফ কথা.... কান্ডারি এগিয়ে যাও

সংলাপ ।।   জীবনচলার পথে সতর্ক হয়েছে এবং হচ্ছে বাংলার মানুষ। শুধু সতর্ক হয় না অপরাধীরা। তাদের ভয় লজ্জা ঘৃণার বালাই নেই। দেশের নানা প্রান্তে তাদের দৌরাত্ম এখনো অব্যাহত। এই যাত্রার শেষ কোথায় ? সত্যান্বেষণের প্রেরণা দুর্বার। মানুষ সীমার গন্ডিতে থেকেও অসীমের পূজারী। অধ্যাত্মসম্পদে দীন ব্যক্তির কাছে সত্যমানুষ পথপ্রদর্শকরূপে উপস্থিত হন। তিনিই মুক্তিপিপাসুকে অসৎ থেকে সৎ-এ, তমসা থেকে জ্যোতিতে, মৃত্যু থেকে অমরত্বে উন্নীত করেন। পরাধীনতার গ্লানি থেকে মুক্ত হয়ে আটচল্লিশ বছর আগে আমরা স্বাধীনতা লাভ করি। এই স্বাধিকার অর্জন করতে তখনকার সাধারণ মানুষ ও মুক্তি-যোদ্ধাদের বহু বাধাবিঘ্ন অতিক্রম করে এগিয়ে যেতে হয়েছে। একদিন তারা নিজেদের জীবন, স্ত্রী-পুত্র, গৃহ-সম্পদ তুচ্ছ করে, ভবিষ্যতের সব আকাঙ্খা ত্যাগ করে পূর্ণ স্বাধীনতার লক্ষ্য সম্মুখে রেখে মুক্তি-আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। সেদিন যৎসামান্য সুবিধা বা অধিকার লাভ করেই তারা যদি তৃপ্ত হয়ে থেমে যেতেন- তবে কেবলমাত্র একটি স্বাধীন রাষ্ট্রের [বিস্তারিত...]

৭০-৭৩’র মতো ১৮ ’তেও জনরায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষে

নজরুল ইশতিয়াক ॥ ঐক্য উপর থেকে চাপিয়ে দেয়ার বিষয় নয়। বরং উপরতলার মানুষ যখন বারবার জোর করে ঐক্য স্থাপনের কথা বলে তখন দূরভিসন্ধি কিংবা ভয়ানক অজ্ঞতা প্রকাশ পায়। ঐক্য শব্দটি বললেই ঐক্য স্থাপিত হয় না। মাইক নিয়ে সারা শহর ঘুরে ঘুরে প্রচারণা চালালে কিংবা টকশো সাংবাদিক সম্মেলনে বড় বড় কথা বললেই ঐক্যের মালা গাঁথা হয়না। ৫৪ সালে যুক্তফ্রন্ট গঠনের মধ্য দিয়ে বাঙালিরা প্রতিক্রিয়াশীল প্রতারক শক্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে জয়লাভ করেছিল। সে সময়ও দেশীয় কিছু রাজনৈতিক দল যুক্তফ্রন্টের বিপক্ষে অর্থ্যাৎ পাকিস্তানী দোসর মুসলিম লীগের পক্ষে অবস্থান নিয়েছিল। সেই যুক্তফ্রন্ট নামটি আকস্মিক দেখা গেলো সাম্প্রতিক রাজনীতিতে। এই যুক্তফ্রন্ট আর সেই যুক্তফ্রন্ট কি একই প্রয়োজনে আত্মপ্রকাশ করেছে? আর কারাই বা কাদের বিরুদ্ধে যুক্তফ্রন্ট গড়ে তুলতে চেয়েছে। ৫৪’র নির্বাচনে বিজয়ী যুক্তফ্রন্ট বাঙালির স্বাধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিক্রিয়াশীল অন্ধ প্রতারক জরাগ্রস্ত তথাকথিত [বিস্তারিত...]

মাঝি বাইয়া যাও রে....

সংলাপ ॥ আবারও বাংলা আর বাঙালির দায়িত্ব নৌকার। মাঝি তার শেখ হাসিনা, বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের যোগ্য উত্তরাধিকার। মোটেও সহজ ছিল না পথচলা। এখনও সহজ নয়। তবে নৌকার হাল ধরেছেন দৃঢ়ভাবে তা বলা যায়। মাঝি এবার বাইয়া যাবে, সাত সমুদ্র পাড়ি দিবে, বাঙালির জয়যাত্রায়....। সামনে কঠিন পথ। সহজ কিছু নেই। সহজ কথাটি সহজে বলা যায় না। বাঁচাও বললেই বাঁচে না। হামলার মুখে নিষ্ক্রিয় প্রতিরোধ জনগণকে নিরাপত্তাহীন করে দেয়। অপ্রত্যাশিত মিথ্যাচার এবং অবরোধ প্রতিরোধকে ডেকে আনে। সেটাকে বাস্তবায়িত করতে হয়। না হলে একতরফা মিথ্যাচার এবং অবরোধ মানুষকে হতাশ করে দেয়। কলমবাজ, অস্ত্রধারী - প্রত্যেককে তার মুদ্রাতেই ঋণ শোধ করতে হয়। তা হলেই জনগণ বাঁচে। জনগণের চিন্তাই করতে হবে নৌকার মাঝিকে। জনগণের স্বার্থই সরকারের স্বার্থ। জনগণের জীবন-মান-সম্পত্তি রক্ষার দায় তাদেরই। শুধু পুলিশ প্রশাসনের নয়। মাফিয়াদের চিহ্নিত করতে জনগণকে উৎসাহিত [বিস্তারিত...]

ইসলামকে চীনা ভাবধারায় অনুপ্রাণিতকরণ

ইসলামকে চীনা ভাবধারায় অনুপ্রাণিতকরণ সংলাপ ॥ লালচিনের কমিউনিস্টদের রোষের মুখে ইসলাম। উইঘুর মুসলিম সম্প্রদায়ের পর এবার লালচিনের নিশানায় ইসলাম সম্প্রদায়ের মানুষ। ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের চীনা ভাবধারায় অনুপ্রাণিত করতে বিল পাশ করল বেজিং। যদিও এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে সে দেশের আটটি ইসলামিক সংগঠনের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করেছে জি জিনপিং সরকার। এই বৈঠকের পরেই এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে লালচিন। এমনটাই গ্লোবাল টাইমসে প্রকাশিত হয়েছে। পাশ হওয়া বিলে কি লেখা রয়েছে? সমাজতন্ত্রের সঙ্গে সুসঙ্গত করে তুলতে ইসলাম ধর্মকে পথপ্রদর্শনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আধিকারিকরা। সেই লক্ষে সংশ্লি­ষ্ট ধর্মকে চীনা ভাবধারায় অনুপ্রাণিত করতে পদক্ষেপ নেয়া হবে।’ তবে কীভাবে তা করা হবে, সে বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে কিছুই জানানো হয়নি। এর আগে উউঘুর মুসলিমদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছিল চিন। জাতিসংঘ জানিয়েছিল, প্রবল ক্ষমতার অধিকারী জি জিংপিন-এর মতাদর্শে শাসিত চিনে ১০ লাখেরও বেশি উইঘুর মুসলিমকে আটক রেখে তাদের ধর্ম পালনে বাধা দেয়া হচ্ছে। বলপূর্বক [বিস্তারিত...]

মহিলাদের তালাকের নতুন নিয়ম সৌদিতে

মহিলাদের তালাকের নতুন নিয়ম সৌদিতে সংলাপ ॥ মহিলাদের অজান্তে তাদের তালাক দেয়া বন্ধ করতে নতুন বিধান জারি করল সৌদি আরব। আগে সৌদি পুরুষরা মৌখিকভাবে তালাক চাওয়ার পর আদালতে গেলে মহিলাকে না জানিয়েই বিবাহবিচ্ছেদ চূড়ান্ত করতে পারতেন। তবে রবিবার থেকে কার্যকর হওয়া বিধির আওতায় বিবাহবিচ্ছেদ চূড়ান্ত করে দেয়ার নিয়ম সৌদি মহিলার কাছে মোবাইলে মেসেজ মারফত পাঠাতে হবে আদালতকে। এর মধ্য দিয়ে স্ত্রীকে না জানিয়ে স্বামীদের গোপনে বিবাহবিচ্ছেদ চূড়ান্ত করার প্রবণতা বন্ধ হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন স্থানীয় মহিলা আইনজীবীরা। আইনজীবীরা জানিয়েছেন, এর মধ্য দিয়ে সৌদি মহিলারা বিচ্ছেদের পর স্বামীর কাছ থেকে খোরপোষ নিশ্চিত করতে পারবেন। ইসলামী আইনে পরিচালিত সৌদি আরবে শরীয়ার যে ব্যাখ্যা দাঁড় করানো হয়, তাতে পুরুষরা মৌখিকভাবে তালাক উচ্চারণের মধ্য দিয়ে বিবাহ বিচ্ছেদের ইচ্ছা প্রকাশ করলেই আদালত তা অনুমোদন করে। এক্ষেত্রে মহিলাদের মতামতের কোনও সুযোগ নেই। তাদের মতামত তাই নেয়াও হয় না। কেবল [বিস্তারিত...]

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে রাউল ক্যাস্ত্রোর ক্ষোভ

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে রাউল ক্যাস্ত্রোর ক্ষোভ সংলাপ ॥ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কিউবার কমিউনিস্ট পার্টির নেতা রাউল ক্যাস্ত্রো। কিউবা বিপ্লবের ৬০তম বার্ষিকীতে রাজধানী হাভানায় এক বক্তব্যে তিনি দ্বীপরাষ্ট্র কিউবা ও লাতিন আমেরিকায় মার্কিন হস্তক্ষেপ এবং সেকেলে সংঘাতের পথে ফেরার জন্য এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন। বড় ভাই ফিদেল ক্যাস্ত্রোর নেতৃত্বে বিপ্লবে অংশ নিয়েছিলেন রাউল ক্যাস্ত্রো। তাদের সেই বিপ্লবে ১৯৫৯ সালে মার্কিন সমর্থিত স্বৈরশাসক উৎখাত হয়ে কিউবায় প্রতিষ্ঠিত হয় কমিউনিস্ট শাসন। এর ফলে তাদের সঙ্গে কয়েক দশকের শীতল যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে আমেরিকা। দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় শহর সান্তিয়াগো ডি কিউবায় ছয় দশক আগে কিউবা বিপ্লবের বিজয় ঘোষণা করেছিলেন ফ্রিদেল ক্যাস্ত্রো। গত মঙ্গলবার সেখানে এক সমাবেশে দাড়িয়ে ছোটভাই রাউল ক্যাস্ত্রো ঘোষণা করেন, আবারো মার্কিন সরকার কিউবার সঙ্গে সংঘাতের পথ বেছে নিয়েছে। রাউল ক্যাস্ত্রো এর আগে এপ্রিলে প্রেসিডেন্টের থেকে সরে দাঁড়ান। কিন্তু ২০২১ সাল পর্যন্ত তিনি কমিউনিস্ট [বিস্তারিত...]

জয় বাংলা - বাঙালির জয়

জয় বাংলা - বাঙালির জয় সংলাপ ॥ অভিনন্দন বাংলাদেশ। অভিনন্দন বাংলাদেশের গণতন্ত্রের অতন্দ্র প্রহরী ভোটার সমাজ। অভিনন্দন বাংলাদেশের জনগণকে। শুভেচ্ছা রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থাপনাকে। আরও পাঁচটা বছর গণতন্ত্রের পথেই চলা শুরু বাংলাদেশ এর- গোটা বিশ্বকে এ বার্তা দিয়ে সাধারণ নির্বাচন সম্পন্ন হল বাংলাদেশে। উপমহাদেশে তথা এশিয়ায় গণতন্ত্রের জয়ধ্বজা উড্ডীন রাখতে বাংলাদেশে গণতন্ত্রের সাফল্য নজিরবিহীন। বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার সফল ও নির্বিঘ্ণ সমাপন এশিয়ার কাছে অত্যন্ত কাঙ্খিত। স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে জন্ম নেওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত বার বার গণতন্ত্রের পথ বাংলাদেশে অবরুদ্ধ হয়েছে। বার বার রাষ্ট্র চালনায় সামরিক হস্তক্ষেপ হয়েছে, গণতান্ত্রিক সরকারকে উপড়ে ফেলে সামরিক শাসন চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হয়েছে। কিন্তু আজকের বাংলাদেশ এক নতুন দিগন্তে উপনীত। টানা তিনটে সরকার সাধারণ নির্বাচনের মাধ্যমে গঠিত হল- বাংলাদেশের জন্য এ এক নতুন উপলব্ধি। বাংলাদেশে রাজনৈতিক সুস্থিতিও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক থেকে জঙ্গি দমন- এমন নানা বিষয়ে প্রতিবেশী দেশগুলোর সাথে বাংলাদেশের আদান-প্রদান [বিস্তারিত...]

এখন ষড়যন্ত্রকারী রাজনীতিকদের বিতাড়িত করার পালা

আর যারা মন্দ কাজের ষড়যন্ত্র করে তাদের জন্য আছে কঠিন শাস্তি। তাদের ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হবেই। (আল কুরআন, সূরা ফাতির : আয়াত-১০) তারা পৃথিবীতে ঔদ্ধত্য দেখাতো ও কূট ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিল। যারা ষড়যন্ত্র করে, ষড়যন্ত্র তাদেরকেই ঘিরে ফেলে। (আল কুরআন, সূরা ফাতির : আয়াত-৪৩) যারা অপরাধ করেছে ষড়যন্ত্র করার জন্য, আল্লাহর কাছ থেকে তাদের উপর লাঞ্ছনা ও কঠোর শাস্তি পড়বে। (আল কুরআন, সূরা আনআম : আয়াত-১২৪) ওদের পূর্ববর্তীরাও ষড়যন্ত্র করেছিল, আল্লাহ্ ওদের ষড়যন্ত্রের কাঠামোর ভিত্তিমূলে আঘাত করেছিলেন (আর সেই) কাঠামোর ছাদ ওদের উপর ধ্বসে পড়েছিল। আর ওদের ওপর এমন দিক থেকে শাস্তি এলো যা ছিল ওদের ধারণাতীত। (আল কুরআন, সূরা নাহল : আয়াত-২৬) সংলাপ ॥ সহজ সরল বাঙালি কূটচাল আর ষড়যন্ত্র জানে না। এটি পরধনলোভী - ক্ষমতা আর স্বার্থলোভীদের সুরক্ষিত বর্ম। হাজার হাজার বছর ধরে এই দেশকে নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীরা তাদের কর্মযজ্ঞ চালিয়েছে। চরম [বিস্তারিত...]

সময়ের সাফ কথা.... এলোমেলো কথা !

সংলাপ ॥ শুধু নির্বাচনে জেতার জন্য জোট করব, এই ধারণাটা রাজনীতির দিক দিয়েও ভাল না, নির্বাচনের দিক দিয়েও ভাল না। যে বিষয়ে প্রথমেই সতর্ক থাকা দরকার, সেটা হল নেতৃত্ব নিয়ে টানাপড়েন। সেটাকে অতিক্রম করতে হলে একটা বড় রকমের আদর্শের প্রয়োজন আছে। ‘আদর্শ নিয়ে রাজনীতি করছি’ বলতে লোকে এখন লজ্জা পায়, ভয় পায় যে এতে আমরা বাস্তব থেকে বিচ্যুত হলাম! এখানে দুটো সমস্যা আছে। এক, বংলাদেশে যে ঐক্যের চেতনা ছিল, তার বিরুদ্ধে একটা বড় রকমের হামলা চলেছে, যেটা প্রধানত বিএনপি-জামাত চালিয়েছে, এবং তার ফলে ক্রমশ অনেক লোকের মনে একটা ধারণা তৈরি করা হয়েছে যে, ও রকম কোনও আদর্শগত ঐক্য বলে কিছু আসলে নেই, ও সব নিয়ে ভাবা বা কথা বলা একটা ছেলেমানুষি। এই ধারণার সঙ্গে কী ভাবে লড়াই করা যায়, সেটা একটা বড় প্রশ্ন। ঐক্যের  ধারণা যে এই হামলায় জখম [বিস্তারিত...]

আত্মতুষ্টি নয় - স্বপ্ন, বাঙালি আবার জগৎসভায় শ্রেষ্ঠ আসন লভে

সংলাপ ॥ ২০১৮-কে বিদায় জানিয়ে আরও একটি নতুন বছরে পা দিল বিশ্ব। কেমন কেটেছে বিগত এই বছরটি?-বাঙালির সহজ স্বাভাবিক উত্তর-যায় দিন ভাল। ভাল-মন্দ মিলিয়েই কেটেছে সদ্য অতীত হওয়া বছরটি। নতুন বছরে আমরা কেবল ভালোই চাইব। চাইব সারা বিশ্ব শান্তিতে থাকুক। বিশ্ববাসীর কল্যাণ হোক। বিগত বছরের যাবতীয় গ্লানি আর অপূর্ণতার পুনরাবৃত্তি চাই না। চাই কলুষমুক্ত বিশ্ব, পৃথিবীর আকাশ হোক যাবতীয় অকল্যাণের মেঘমুক্ত। ২০১৮-তে বিশ্বজুড়ে সন্ত্রাসী তৎপরতা আর যুদ্ধের দামামা কোটি কোটি মানুষের জীবনকে দুর্বিষহ করে তুলেছিল, শান্তি প্রতিষ্ঠার নামে চকচকে মোড়কে পাল্টা অশান্তি সৃষ্টির অপচেষ্টাও দেখতে হয়েছে বিশ্ববাসীকে। মুখে যত বড় বড় কথাই বলা হোক না কেন, ক্ষমতার দাপাদাপি আর রাজনৈতিক মিথ্যাচার যে শেষমেশ সাধারণ মানুষের উপরই কঠিন আঘাত হানে, বিগত বছরে তা মর্মে মর্মে উপলব্ধি করতে বাধ্য হয়েছে অসংখ্য নিরীহ প্রাণ। সামান্য সুখ আর স্বস্তির বেশি চাহিদা যাদের [বিস্তারিত...]

সারাদেশে বিনামূল্যে বই পেয়ে উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থীরা

সংলাপ ॥ ইংরেজি নববর্ষ ও নতুন শিক্ষা বছরের প্রথম দিনে আনুষ্ঠানিকভাবে রাজধানী ঢাকাসহ দেশজুড়ে উৎসবমুখর পরিবেশে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণ করা হয়েছে। এ বছর বিভিন্ন স্তরের ৪ কোটি ২৬ লাখ ১৯ হাজার ৮৬৫ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ৩৫ কোটি ২১ লাখ ৯৭ হাজার ৮৮২ কপি বই পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করেছে সরকার। বছরের প্রথম দিনে প্রাক-প্রাথমিক, প্রাথমিক, মাধ্যমিক, ইবতেদায়ি, দাখিল, দাখিল ভোকেশনাল, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ভাষায় পাঠ্যপুস্তক ও এসএসসি ভোকেশনাল স্তরের (কারিগরি ও ব্রেইল বইসহ) শিক্ষার্থীদের জন্য বিনামূল্যে বই পৌঁছে দিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সফলতার সাথে কাজ করে যাচ্ছে। ২০১০ থেকে ২০১৯ শিক্ষাবর্ষ পর্যন্ত বিভিন্ন স্তরের সর্বমোট ২৯৬ কোটি ৭ লাখ ৮৯ হাজার ১৭২ কপি পাঠ্যপুস্তক বই শিক্ষার্থীদের জন্য বিতরণ করা হয়।  গত সপ্তাহে  মঙ্গলবার আজিমপুর গর্ভমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের খেলার মাঠে সকাল সাড়ে ৯টায় কেন্দ্রীয়ভাবে এ বছরের বিনামূল্যে পাঠ্যবই বিতরণ কার্যক্রমের [বিস্তারিত...]

চূড়ান্ত বিজয়ী আসাদ : দ্যা গার্ডিয়ান

চূড়ান্ত বিজয়ী আসাদ : দ্যা গার্ডিয়ান সংলাপ ॥ ব্রিটেনের প্রভাবশালী পত্রিকা দ্যা গার্ডিয়ান বলেছে, ২০১৮ সাল শেষ হয়েছে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের চূড়ান্ত বিজয়ের মধ্য দিয়ে। এ বিজয় অর্জিত হয়েছে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার ও সিরিয়ায় আরব দেশগুলোর দূতাবাস খোলার প্রতিযোগিতার মধ্যদিয়ে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সম্প্রতি সিরিয়া থেকে দ্রুত সেনা প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করেছেন। তার এ ঘোষণার মধ্যদিয়ে সিরিয়ায় অবস্থান করা মার্কিন সেনাদের পক্ষ থেকে সিরিয়ার জন্য সম্ভাব্য যেকোনো রকমের হুমকি শেষ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছে গার্ডিয়ান। গত সপ্তাহে সংযুক্ত আরব আমিরাত দামেস্কে নতুন করে দূতাবাস চালু করেছে। ২০১১ সালে সিরিয়ায় বিদেশি মদদপুষ্ট সন্ত্রাসীদের সহিংসতা শুরুর পরপরই দেশটি দূতাবাস বন্ধ করে দিয়েছিল। আমিরাত দূতাবাস চালুর পর বাহরাইন ও কুয়েত একই ঘোষণা দিয়েছে। এছাড়া, আরো কিছু আরব দেশ এ পথে এগুবে বলে মনে করা হচ্ছে। পাশাপাশি বহিষ্কারের সাত বছর পর আরব লীগও এখন সিরিয়াকে এ সংস্থায় ফিরিয়ে [বিস্তারিত...]

রাশিয়ায় মার্কিন গোয়েন্দা আটক!

রাশিয়ায় মার্কিন গোয়েন্দা আটক! সংলাপ ॥ রাশিয়ার একটি অভ্যন্তরীণ গোয়েন্দা নেটওয়ার্ক রাজধানী মস্কো থেকে আমেরিকার এক নাগরিককে আটক করেছে। মার্কিন ওই নাগরিককে গোয়েন্দাবৃত্তির বিষয়ে সন্দেহ করা হচ্ছে এবং এরইমধ্যে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বিষয়টি আদালতে তোলা হয়েছে। রুশ ফেডারেল সিউরিটি সার্ভিস বা (এফএসবি) জানিয়েছে, আটক মার্কিন নাগরিকের নাম পল ওয়েলান এবং গত শুক্রবার গোয়েন্দাবৃত্তি করার সময় তাকে আটক করা হয়। এফএসবি’র বিবৃতির বরাত দিয়ে রাশিয়ার বহু সংবাদ মাধ্যম এ খবর দিয়েছে। রুশ ক্রিমিনাল কোডের ২৭৬ নম্বর ধারা অনুসারে পল ওয়েলানের বিরুদ্ধে অপরাধমূলক তৎপরতার জন্য ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ধারার আওতায় কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে গোয়েন্দাগিরির অভিযোগে বিচারকার্য পরিচালনা করা হয়। তবে মার্কিন এ নাগরিক রাশিয়ার ভেতরে কী ধরনের গোয়েন্দাবৃত্তি চালিয়েছে তা কোনো সংবাদ মাধ্যমে বিস্তারিত প্রকাশ করেনি। স্নায়ুযুদ্ধ অবসানের পর আমেরিকা ও রাশিয়ার মধ্যকার উত্তেজনা কমে গেলেও ২০১৪ সালে ইউক্রেন থেকে ক্রিমিয়া রাশিয়ার মূলভূখণ্ডের [বিস্তারিত...]

ইংরেজী মাসের নামকরণের ঐতিহাসিক কারণ

ইংরেজী মাসের নামকরণের ঐতিহাসিক কারণ সংলাপ ॥১৫৮২ সালে পোপ গ্রেগরি পুরানো রোমান ক্যালেন্ডারকে সংশোধন করে নতুন ক্যালেন্ডার আনেন। তার নামেই ক্যালেন্ডারের নাম হল গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার।এর আগে ইংল্যান্ড ও আমেরিকার বিভিন্ন জায়গায় বছর শুরু হত বসন্তবিষুবের দিন, যা সাধারণত মার্চের ২০-২১ তারিখ পড়ত। দেখে নেওয়া যাক বিভিন্ন ইংরাজি মাসের নামের আসল কারণ। জানুয়ারি মাসের নামের পিছনে আছেন রোমান দেবতা জেনাস। দুই মুখ দিয়ে তিনি সামনে ও পিছনে দেখতে পান। খ্রিস্টজন্মের প্রায় ৬৯০ বছর আগে সম্রাট নুমো পম্পিলিস জানুয়ারি মাসকে বছর শুরুর প্রথম মাস হিসেবে ঘোষণা করেন। দুটি মুখ দিয়ে জেনাস পুরনো ও নতুন বছর দেখতে পাবেন, এই ছিল ধারণা। প্রাচীন রোমানরা ফেব্রুয়া নামে একটি ‘শুদ্ধিকরণ উৎসব’ করতেন। উৎসবে ছাগলের চামড়া দিয়ে তৈরি চাবুক ‘ফেব্রুয়া’ দিয়ে নিঃসন্তান মহিলাদের অত্যাচার করা হত। মনে করা হত, এর ফলে তারা পবিত্র হয়ে সন্তানের জন্ম দেবেন। সম্রাট পম্পিলিস এই উৎসবের জন্য [বিস্তারিত...]

সত্য সন্ধানে সংলাপ